❤️ Get Access to the best places First

Today study Plan

Author:

Published:

Updated:

daily study tips

Affiliate Disclaimer

As an affiliate, we may earn a commission from qualifying purchases. We get commissions for purchases made through links on this website from Amazon and other third parties.

সপ্তম শ্রেণির পড়াশোনা বাংলাঃ

*প্রতিশব্দ শিখি

প্রতিশব্দ বলতে বোঝায় এমন কিছু শব্দ যেগুলো কাছাকাছি অর্থ প্রকাশ করে। যেমন: ‘গাছ’ শব্দটি কখনো

বৃক্ষ, কখনো তরু, কখনো উদ্ভিদ, কখনো লতা, আবার কখনো তৃণ বোঝায়। এখানে বৃক্ষ, তরু, উদ্ভিদ, লতা,

তৃণ-এগুলো ‘গাছ’ শব্দের প্রতিশব্দ। প্রতিশব্দকে সমার্থক শব্দও বলে।

বাক্যে একটি শব্দের বদলে তার প্রতিশব্দ ব্যবহার করা যায়। যেমন, ‘ডান দিকের রাস্তা দিয়ে যাও’-এই

বাক্যের বদলে বলা যায় ‘ডান দিকের পথ দিয়ে যাও’। তবে প্রতিশব্দ সবসময়ে বদলযোগ্য হয় না। যেমন,

কেউ বলতে পারেন ‘ধানগাছে পোকার আক্রমণ হয়েছে।’ কিন্তু এর বদলে ‘ধানবৃক্ষে পোকার আক্রমণ হয়েছে’-

এমনটা কেউ বলেন না।

নিচে কিছু শব্দের প্রতিশব্দ দেওয়া হলো।

অকাল: অসময়, অবেলা, দুর্দিন, অশুভ সময়, দুঃসময়।

অতিথি: মেহমান, অভ্যাগত, আগন্তুক, নিমন্ত্রিত, আমন্ত্রিত, কুটুম।

অভাব: অনটন, দারিদ্র্য, দৈন্য, দীনতা, দুরবস্থা, অসচ্ছলতা।

আইন: বিধান, কানুন, ধারা, নিয়ম, বিধি।

একতা: ঐক্য, মিলন, অভেদ, অভিন্নতা।

কথা: উক্তি, বাক্য, বচন, কথন, বাণী, ভাষণ।

খাদ্য: খাবার, খানা, আহার, ভোজ্য, অন্ন, রসদ।

ঝড়: ঝঞ্ঝা, তুফান, সাইক্লোন, ঝটিকা, টর্নেডো , ঘূর্ণিঝড়।

দয়া: অনুগ্রহ, করুণা, কৃপা, অনুকম্পা, মায়া।

দিন: দিবস, দিবা, বার, রোজ।

নদী: নদ, গাঙ, স্রোতস্বিনী, তটিনী, নির্ঝরিণী।

পাখি: পক্ষী, পঙ্খি, বিহঙ্গ, বিহগ, পাখপাখালি।

মন: অন্তর, দিল, পরান, চিত্ত, হূদয়, অন্তঃকরণ।

যুদ্ধ: লড়াই, সংঘর্ষ, সংগ্রাম, সমর, রণ।

সুন্দর: মনোরম, মনোহর, শোভন, রম্য, সুদর্শন।

প্রতিশব্দ বসিয়ে আবার লিখি

নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ো। এরপর এখানকার অন্তত দশটি শব্দের বদল ঘটিয়ে অনুচ্ছেদটি লেখো।

রাত্রি যত গভীর হয়, প্রভাত তত নিকটে আসে। এ কথার মানে হলো বিপদ দেখে ভয় পাওয়ার কিছু নেই।

সমস্যা যেমন আছে, তেমনি সেই সমস্যা সমাধানের উপায়ও আছে। পৃথিবীতে নানা রকম ঘটনা ঘটে বলেই

পৃথিবী এত বৈচিত্র্যময়। দুঃখের ঘটনা যেমন ঘটে, তেমনি আনন্দের ঘটনাও ঘটে। অন্যের দুঃখে দুঃখী হতে হয়, আর অন্যের আনন্দে আনন্দিত হতে হয়। তবে অনেক সময়ে নিজের বিপদের দিনে কাউকে পাশে পাওয়া যায় না। তাতে হতাশ হওয়ার কিছু নেই। মেঘ কেটে যেমন সূর্য ওঠে, তেমনি দুঃসময় কেটে সুন্দর সময় আসে।

……………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………

অষ্টম শ্রেণির পড়াশোনা:

ইংরেজি এবং বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়

বরুণ চন্দ্র সরকার, শিক্ষক

সরকারি জাজিরা মোহর আলী মডেল উচ্চবিদ্যালয়, শরিয়তপুর

 

 

NARRATION

(‘Must’ এর পরিবর্তন)

Must  সাধারণত : had  to তে পরিণত হয়।

Direct: Ruma said, “ I must do the work.” Indirect:Ruma  said that she had to do the work.# First person- এ must কোনো ভবিষ্যত কাজের  দ্বারা বাধ্যবাধকতা  বোঝাতে  Indirect speech এ would have to তে পরিণত হয়।Direct: He said, “ we must leave the house if the rent is increased.”Indirect:He said that they  would have to leave the house if the rent was increased. চিরকালীন বাধ্যবাধকতা  বোঝাতে  must   কোনো পরিবর্তন হয় না।

Direct: The  teacher  said to his students, “You must obey your parents.

Iidirect: : The teacher said to his students  that they must obey their parents.

 

Direct speech-   “Thank you”  থাকলে তাকে indirect করার নিয়ম:

Structure:  Sub+thank/thanked+object.

Direct:He said, “Thank you.”

Indirect:He thanked me.

Good-bye যুক্ত Direct speech   কে Indirect করার নিয়ম:

Sub+bid/bade+object+good-bye

Direct:He said, “Good-bye my friends.”

Indirect: He bade his good-bye.

Direct speech- এ Good morning/ good evening/good night থাকলে  indirect  করার নিয়ম:

Structure: Sub+wish/wished+object+good morning/good evening/good night.

Direct:I said to him, “Good morning.”

Indirect: I wished him good morning.

Reporting verb ও তার  sub এবং object উল্লেখ না থাকলে the speaker said to the person spoken to লিখে Indirect করতে হয়।

Direct: ‘I shall go to school tomorrow’

Indirect: The speaker said to the person spoken to that he (s) would go to school the next day.
 Direct speech- এ বক্তা ও শ্রোতা উভয় proper noun  হলে  Indirect  করার সময় pronoun এর পাশে ব্রাকেটের মধ্যে উক্ত pronoun টি যে ব্যক্তির পরিবর্তে বসেছে সেই ব্যক্তির নামের প্রথম অক্ষর লিখতে হয়।

Direct: Sumon said to Ripon, “ I have taken your book.”

Indirect: Sumon told Ripon that he (s) had taken his (R) book.

বাংলাদেশ বিশ্বপরিচয়:

সুধীর বরণ মাঝি, শিক্ষক

সরকারি হাইমচর মহাবিদ্যালয়

চাঁদপুর

 

১। বাংলায় স্বাধীন সুলতানি  শাসন প্রতিষ্ঠা করেন কে ?                                                                                                                                                       (ক) নবাব সিরাজউদ্দৌলা

(খ) ফকরুদ্দিন মোবারক শাহ

(গ) নবাব আলীবর্দি খাঁ

(ঘ) ইখতিয়ার উদ্দিন মোহাম্মদ বিন বখতিয়ার খলজি।

২। শশাঙ্কের মৃত্যুর পর একশত বছরকে মাত্স্যন্যায়ের যুগ বলা হয়। কারণ তখন-                                                                      (i) দেশে সর্বত্র বিশৃঙ্খলা বিরাজ করত

(ii) বড়মাছ ছোট ছোট মাছকে ধরে খেয়ে ফেলত

(iii) শাসকবর্গ সুশাসনে অক্ষম ছিল।

নিচের কোনটি সঠিক

(ক) iও ii                   (খ) ও iiও iii

(গ)iও iii                    (ঘ) i, iiও iii।                                                                                                                    নিচের অনুচ্ছেদটি পড় ৩ এবং ৪নং প্রশ্নের উত্তর দাও : আশার দাদু তাকে একটি ঐতিহাসিক ঘটনা প্রসঙ্গে বলেন যে, বাংলার নবাবকে শাসন কাজের জবাবদিহি করতে হত। তবে তাকে এ কাজে অর্থের জন্য অন্য একটি কর্তৃপক্ষের মুখাপেক্ষী থাকতে হতো।                                                                                            ৩। আশার দাদুর বর্ণিত ঘটনায় কোন শাসনের চিত্র প্রতিফলিত হয়েছে ?

(ক) নবাব শাসন             (খ) সুবেদার শাসন

(গ) দ্বৈত শাসন               (ঘ) ইংরেজ শাসন

৪। বর্ণিত ঘটনার ফলে-                                                                                                                                                       (i) দেশে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ঘটে

(ii) জনগণ দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়

(iii) জনগণের মধ্যে বিদ্রোহী মনোভাব জেগে উঠে।

নিচের কোনটি সঠিক

(ক) i                         (খ) ii

(গ) iii                        (ঘ) i, ii ও iii                                                                                                                  ৫। ছিয়াত্তরের মন্বন্তরের সময় বাংলার জনসংখ্যা কত ছিল?

(ক) ৩ কোটি                  (খ) ৪ কোটি

(গ) ৫ কোটি                  (ঘ) ৬ কোটি।

৬। পলাশীর যুদ্ধ সংঘটিত হয় কত সালে ?                                                                                                                                                  (ক) ১৭৫৭ সালের ২৩ জুন

(খ) ১৮৫৭ সালের ২৩ জুন

(গ) ১৭৫৭ সালের ৩০ মার্চ

(ঘ) ১৭৭৫ সালের ২৬ মার্চ ।

৭। দ্বৈত শাসন ব্যবস্থার ফলে-

(i ) দুর্ভিক্ষ দেখা দেয়

(ii) প্রজারা অতিরিক্ত কর দিতে বাধ্য হয়

(iii) রাজস্ব আদায়ের ক্ষমতা ইংরেজদের হাতে চলে যায়।

নিচের কোনটি সঠিক

ক)i                          (খ) i ও iii

(গ) i ও ii                   (ঘ) i,ii ও iii                                                                                                                  ৮। ইউরোপে যুদ্ধরত বিভিন্ন দেশগুলোর মধ্যে শান্তি চুক্তি হয় কত সালে ?

(ক) ১৬৪৮ সালে     (খ) ১৬৫৮ সালে

(গ) ১৬৭৮ সালে            (ঘ) ১৬৯৮ সালে

৯। ১৮৫৩ সালে বাংলা প্রদেশকে দ্বিখণ্ডিত করেছিল কোন ঔপনিবেশিকরা?

(ক) ফরাসি                  (খ) পর্তুগিজ

(গ) ওলন্দাজ                (ঘ) ব্রিটিশ

১০। পলাশীর যুদ্ধের মাধ্যমে-                                                                                                                                                                                    (i) ঔপনিবেশিক শক্তির বিজয়

(ii) ইংরেজদের শক্তি বৃদ্ধি পেতে থাকে

(iii) শাসন ক্ষমতার পরিবর্তন ঘটে।

নিচের কোনটি সঠিক

(ক) i                        (খ) ii

(গ) i ও iii                  (ঘ) i,ii ও iii।                                                                                                          ১১। ভাস্কো-ডা-গামা কোন দেশের নাগরিক ছিলেন?                                                                                                                                (ক) ফ্রান্স     (খ) পর্তুগাল

(গ) জাপান                   (ঘ) ইতালী ।

১২। ১২০৬ সালে বখতিয়ার খলজির মৃত্যুর পর থেকে ১৩৩৮ সাল পর্যন্ত বাংলা জুড়ে-

(i) মুসলিম শাসনের বিস্তার ঘটতে থাকে

(ii) মুসলিম শাসনের অবসান ঘটতে থাকে                                                                           (iii) মুসলিম শাসন তিনটি প্রদেশে বিভক্ত ছিল।

নিচের কোনটি সঠিক

(ক) i ও iii                 (খ) iii

(গ) ii ও iii                 (ঘ) i,ii ও iii                                                                                                 ১৩। বঙ্গভঙ্গ আন্দোলনের ফলে বাঙালিদের মধ্যে পরিলক্ষিত হয়-

(i)  দেশপ্রেমের চেতনা

(ii) শিক্ষার প্রতি উদাসীনতা              (iii) রাজনৈতিক সচেতনতা।

নিচের কোনটি সঠিক

(ক) i                        (খ) ii

(গ) i ও iii                  (ঘ) i,ii ও iii

১৪। ইংরেজ কোম্পানিগুলোর গভর্নর হিসেবে কে হুগলিতে আসেন –

(ক) লর্ড ক্যানিং  (খ) উইলিয়াম হেজেজ

(গ) লর্ড হার্ডিঞ্জ  (ঘ) ওয়ারেন হেস্টিংস।

১৫। মৌর্যদের পর ভারতে কোন সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠিত হয়?

(ক) গুপ্ত(খ) মোঘল (গ) পাল (ঘ) সেন

উত্তর:১ (খ), ২ (গ), ৩ (গ), ৪ (গ), ৫ (ক), ৬ (ক), ৭ (ঘ), ৮ (ক), ৯ (ঘ), ১০ (ঘ), ১১ (খ), ১২ (ক), ১৩ (গ), ১৪ (খ), ১৫ (ক)

Sorce: epaper.ittefaq.com.bd

 

এইচএসসি’র সংক্ষিপ্ত সিলেবাস অনুসারে:

সমাজকর্ম প্রথমপত্র

মনিরুল হক রনি, প্রভাষক, সমাজকর্ম বিভাগ

সাভার সরকারি কলেজ, ঢাকা

৩৭. আধুনিক কল্যাণ রাষ্ট্রের ভূমিকায় অবতীর্ণ হওয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় কী?

ক) সমাজসেবা

খ) সামাজিক উন্নয়ন

গ) সামাজিক পরিবর্তন                  ঘ) সামাজিক নিরাপত্তা

উদ্দীপকটি পড়ো এবং ৩৮, ৩৯ ও ৪০ নং প্রশ্নের উত্তর দাও।

হরেন বাবু একজন নি:সন্তান ধনাঢ্য ব্যক্তি। তিনি মৃত্যুর আগে তার সকল সম্পত্তি একটি মন্দির ও শ্মশান তৈরির কাজে দান করলেন।

৩৮. উদ্দীপকে উল্লিখিত হরেন  বাবুর দানটিকে বলা যায়-

ক) ধর্মগোলা                               খ) দেবোত্তর

গ) সদকা                    ঘ) দানশীলতা

৩৯. হরেন বাবুর দানটি-

  1. i) আংশিক দেবোত্তর
  2. ii) সার্বিক দেবোত্তর

iii) সর্বজনীন দেবোত্তর

নিচের কোনটি সঠিক?

ক) i           খ) ii

গ) i ও ii    ঘ) i, ii ও iii

৪০. হরেন বাবুর দানটি হিন্দু ধর্মের আইনে-

ক) স্বীকৃত   খ) অস্বীকৃত

গ) মনগড়া  ঘ) ভিত্তিহীন

৪১. বাইতুল মালের প্রবর্তন করেন কে?

ক) খলিফা হযরত ওমর (রা:)

খ) খলিফা হযরত আবু বকর (রা:)

গ) খলিফা হযরত আলী (রা:)

ঘ) খলিফা হযরত উসমান (রা:)

৪২. বায়তুলমাল প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল-

  1. i) ব্যক্তিগত কল্যাণে
  2. ii) গোষ্ঠীগত কল্যাণে

iii) রাষ্ট্রীয় কল্যাণে

নিচের কোনটি সঠিক?

ক) i ও ii    খ) ii ও iii

গ) i ও iii        ঘ) i, ii ও iii

৪৩. বায়তুলমালের উত্স নয় কোনটি?

ক)  জিজিয়া কর

খ) গনিমতের মাল

গ) আয়কর

ঘ) মুসলমানদের ভূমি রাজস্ব

৪৪. বিশ্বের সকল দরিদ্র আইন এবং নিরাপত্তা কর্মসূচির পথপ্রদর্শক হিসেবে অভিহিত করা হয় কোনটিকে?

ক) যাকাতকে

খ) বিভারিজ রিপোর্টকে

গ) বায়তুলমালকে

ঘ) ওয়াকফকে

৪৫. কোন মুসলিম কর্তৃক সম্পত্তি বা সম্পত্তির কোন অংশ জনহিতকর বা ধর্মীয় কাজে স্থায়ীভাবে স্বত্বত্যাগ করাকে বলা হয়-

ক) যাকাত       খ) সদকা

গ) ওয়াকফ      ঘ) উইল

৪৬. প্রকৃতিগত দিক থেকে ওয়াকফ কয় প্রকার?

ক) ২ প্রকার                               খ) ৩ প্রকার

গ) ৪ প্রকার                ঘ) ৫ প্রকার

৪৭. এতিমখানার আধুনিক রূপ-

ক) শিশু নিলয়             খ) শিশু পরিবার

গ) এতিম সদন             ঘ) অনাথাগার

উত্তরমালা:৩৭.ঘ ৩৮.খ ৩৯.খ ৪০.ক ৪১.খ ৪২.ঘ ৪৩.গ ৪৪.ক ৪৫.গ ৪৬.ক ৪৭.খ

Sorce: epaper.ittefaq.com.bd

About the author

3 responses to “Today study Plan”

  1. […] Daily study tips powered by newspaper. […]

  2. […] Daily study tips powered by newspaper. […]

Latest Posts

  • প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২৪

    প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২৪

    প্রতিষ্ঠানের নাম: প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরচাকরির ধরন: সরকারি চাকরিপ্রকাশের তারিখ: ১৭ এপ্রিল ২০২৪পদ ও লোকবল: ১৩টি ও ৬৩৮ জনচাকরির খবর: ঢাকা পোস্ট জবসআবেদন করার মাধ্যম: অনলাইনআবেদন শুরুর তারিখ: ১৮ এপ্রিল ২০২৪আবেদনের শেষ তারিখ: ১৯ মে ২০২৪অফিশিয়াল ওয়েবসাইট: https://dls.gov.bd/আবেদন করার লিংক: অফিশিয়াল নোটিশের নিচেপ্রতিষ্ঠানের নাম: প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরপদের সংখ্যা: ১৩টিলোকবল নিয়োগ: ৬৩৮ জন বয়সসীমা: ১৮ থেকে ৩০ বছর হতে…

    Read more

  • The Best Shoe Shops

    The Best Shoe Shops

    Fusce in pulvinar nunc, mattis aliquet turpis. Quisque vel dui sit amet turpis efficitur euismod ut in nisi. Vivamus nec viverra magna. Duis viverra volutpat rutrum. Nulla non orci ut sem pellentesque

    Read more

  • Where to Shop on a Budget

    Where to Shop on a Budget

    Fusce in pulvinar nunc, mattis aliquet turpis. Quisque vel dui sit amet turpis efficitur euismod ut in nisi. Vivamus nec viverra magna. Duis viverra volutpat rutrum. Nulla non orci ut sem pellentesque

    Read more